দেশজুড়ে

বগুড়ার শহীদ চাঁন্দু স্টেডিয়াম বিসিবি’র ভেন্যুর মর্যাদা ফিরে পেল

  নিউজ ডেস্ক ৮ এপ্রিল ২০২৩ , ৯:০৮:১৯

শহীদ চাঁন্দু স্টেডিয়াম, বগুড়া। ছবি : সংগৃহীত

বাতিলের ৩৮ দিন পর নানা জল্পনা-কল্পনার শেষে বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়াম ফিরে পেল বিসিবির ভেন্যু। আজ (৮ এপ্রিল) শনিবার বিসিবি ও বগুড়া জেলা ক্রীড়া সংস্থা (ডিএসএ)এর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। একই সাথে বগুড়ায় একটি পৃথক ক্রিকেট গ্রাউন্ড হবে বলে বিসিবি‘র পক্ষ থেকে আশ্বাস  দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম। এ সময় তিনি মাননীয় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এবং বিসিবির প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনসহ সংস্থাটির অন্য কর্মকর্তাদের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

ডিসি বলেন, সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বগুড়া শহীদ চান্দু স্টেডিয়াম বিসিবি’র ভেন্যু হিসেবে বহাল থাকলো। আজকে আনুষ্ঠানিকভাবে ভেন্যু হস্তান্তর করা হয়েছে। এখন থেকে এই স্টেডিয়ামে জাতীয় লীগ ও বিসিবির খেলাগুলো সমন্বয় করে অনুষ্ঠিত হবে। আমরা আশা করছি আগের থেকে বরং আরও ভালো খেলা দেখতে পাবো।

এ ছাড়াও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম বগুড়া -৬ এর সংসদ সদস্য রাগেবুল আহসান রিপুসহ বগুড়ার ক্রীড়া প্রেমী সুশীল সমাজ, সাংবাদিক ও সর্বস্তরের জনগণের প্রতি জেলা প্রশাসন বগুড়ার পক্ষ হতে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এর আগে ১মার্চ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ভেন্যু বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়াম থেকে জনবলসহ মালামাল গুটিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেই সঙ্গে প্রত্যাহার করা হয় বিসিবির নিযুক্ত বগুড়ার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারিকে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ি পরের দিন বৃহস্পতিবার থেকে চান্দু স্টেডিয়ামে বিসিবির লোকজনেরা মালামাল তুলে নেয়ার কাজ শুরু করে।

ওই সিদ্ধান্তের কারণ হিসেবে বিসিবি  বগুড়া জেলা ক্রীড়া সংস্থাকেই দায়ি করে। তবে সেই অভিযোগকে  অমূলক বলে পাল্টা দাবি জানিয়েছিল জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান মিলন।

স্টেডিয়াম সূত্রে জানা যায়, ২০০৩-০৪ অর্থ বছরে ২১ কোটি টাকায় বগুড়া শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামকে একটি আন্তর্জাতিক ভেন্যুতে (ফ্লাড-লাইটসহ) উন্নীত করা হয়। স্টেডিয়ামে চার টাওয়ারে ১০০টি করে মোট ৪০০ ফ্লাড-লাইট রয়েছে। এই লাইটগুলো ৮ লাখ ওয়াট বিদ্যুতের আলো সরবরাহ করতে পারে। আন্তর্জাতিক খেলা বন্ধের পরে ২০০৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে একবার ফ্লাডলাইটগুলো জ্বালানো হয়েছিল। তবে এরপর সেগুলো আর জ্বলেনি। এর মধ্যে কোনো লাইট নষ্ট রয়েছে কিনা তাও বলতে পারেনি স্টেডিয়ামের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা।

এই মাঠে আগে থেকেই ভালো মানের পাঁচটি উইকেট (পিচ) রয়েছে। ২০০৬ সালের ৩০ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ভেন্যু হিসেবে ঘোষণা করে। একই বছরে স্টেডিয়ামটি আন্তর্জাতিক টেস্ট ভেন্যুর স্বীকৃতিও পায়।

কিন্তু অজানা কারণে ২০০৬ সালের পর থেকে এ মাঠে আন্তর্জাতিক ও জাতীয় পর্যায়ে কোনো খেলা উপভোগ করা দর্শকদের ভাগ্যে জোটেনি। তবে বিভিন্ন সময়ে জাতীয় লিগ, স্থানীয় প্রিমিয়ার ডিভিশন, প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লিগ ও করপোরেট লীগ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসব ম্যাচের সবগুলোই দিনে অনুষ্ঠিত হয়।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম ফেইজবুক আইডি ডিসি বগুড়ায় স্ট্যাটাসে ভেন্যু বহাল রাখায় শুকরিয়া জানিয়ে লিখেছেন, আলহামদুলিল্লাহ।
সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বগুড়া শহীদ চাঁন্দু স্টেডিয়াম বিসিবি’র ভেন্যু হিসেবে বহাল থাকলো। তিনি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো: জাহিদ আহসান রাসেলের প্রতি  কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ধন্যবাদ জানান। সেই সাথে  বিসিবি’র প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। একই সাথে তিনি  যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব, আবু নাছের ভূঁইয়া, (বর্তমান জেলা প্রশাসক, নাটোরসহ বিসিবির নেতৃবৃন্দ  সর্বোপরি বগুড়া -৬ এর সংসদ সদস্যসহ বগুড়া’র ক্রীড়াপ্রেমী সুশীল সমাজ, সাংবাদিক ও সর্বস্তরের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।