পাবনা

ভাঙ্গুড়ায় প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

  ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি ৩১ মার্চ ২০২৩ , ৫:৪২:০৩

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় রুমা খাতুন (২২) নামের এক প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা-পুলিশ। আজ শুক্রবার (৩১ মার্চ) সকালে তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।নিহত ওই গৃহবধূ উপজেলার চকমইষাট গ্রামের মৃত খায়রুল ইসলামের মেয়ে ও পাশ্ববর্তী ফরিদপুর উপজেলার খাগড়বাড়িয়া গ্রামের কুয়েত প্রবাসী জাকারিয়া রহমানের স্ত্রী।

থানা-পুলিশ বলছে,’প্রবাসী স্বামীর সাথে সম্পর্কের অবনতি হওয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।’

থানা-পুলিশ ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, প্রায় দুই বছর আগে পাশ্ববর্তী ফরিদপুর উপজেলার খাগড়বাড়িয়া গ্রামের প্রবাসী জাকারিয়া রহমানের সাথে রুমার বিয়ে হয়।বিয়ের পর সুখেই কাটছিল তাদের দাম্পত্য জীবন। বিয়ের কয়েকমাস পর স্বামী জাকারিয়া কুয়েত চলে যান। গত দুইমাস ধরে স্বামী জাকারিয়ার সাথে রুমার সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। তাই মন:কষ্ট নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে আসেন রুমা। বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) পাশের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান থাকায় বাড়ির সবাই সেখানে ছিল। রুমার মা শিল্পী খাতুন রাত ১১ টার দিকে সেখান থেকে বাড়ি ফিরে দেখেন, শোবার ঘরের আড়ার সাথে মেয়ে রুমা ঝুলছে। প্রতিবেশিদের সহায়তায় দ্রুত তাকে উদ্ধার করে ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে ভাঙ্গুড়া থানা-পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য গোলাম মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শুনেছি মেয়েটি শোবার ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে কি কারণে সে আত্মহত্যা করেছে সে বিষয়ে তিনি কিছুই জানাতে পারেননি।

এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাশিদুল ইসলাম বলেন,‘মাস দুয়েক হলো প্রবাসী স্বামী জাকারিয়ার সাথে রুমার সম্পর্কের অবনতি হয়। ধারণা করা হচ্ছে, সে কারণে রুমা গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সকালে মরদেহটি উদ্ধার করে পাবনা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।’